Monday, September 23, 2019
Home > জাতীয় সংবাদ > সড়কে নেমে শিক্ষার্থীদের ‘লাইসেন্স পরীক্ষা’ চলছে

সড়কে নেমে শিক্ষার্থীদের ‘লাইসেন্স পরীক্ষা’ চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক :
ঢাকা : আগের দিনগুলোর মতো ব্যাপক আকারে না হলেও রোববার উত্তরা, রামপুরা, আসাদ গেইট, বনানী ও কুড়িলে রাস্তায় অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা।
সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উত্তরা হাউজ বিল্ডিং এলাকায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী রাস্তায় নামে। প্রথমে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজের দিক থেকে মিছিল নিয়ে সড়কের মাঝে এসে অবস্থান নেয় একদল শিক্ষার্থী। এরপর আজমপুরের দিক থেকে আরও একটি মিছিল এসে তাদের সঙ্গে যোগ দেয়।
বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলোজি, উত্তরা ইউনিভার্সিটি, ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলোজি, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের এই বিক্ষোভে দেখা গেছে।
এই শিক্ষার্থীদের বেশির ভাগই ইউনিফর্ম পরা; আন্দোলনের মধ্যে নাশকতা ঘটাতে অন্য পক্ষ ঢুকছে বলে পুলিশের হুঁশিয়ারির প্রেক্ষাপটে পরিচয়পত্র ছাড়া কাউকে বিক্ষোভে যোগ দিতে দিচ্ছে না এই শিক্ষার্থীরা।
সড়ক অবরোধ করে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ বলে স্লোগান দিচ্ছে তারা। তাদের অবস্থানের কারণে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। টঙ্গী থেকে আসা বিআরটিসির বাসগুলো ঘুরিয়ে দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা।
টঙ্গী থেকে আসা একজন চাকুরে শফিকুল ইসলাম বলেন, “টঙ্গী থেকে অনেক বলে কয়ে বাসটা আনলাম। অথচ এখানে নামিয়ে দিল। কোনো গাড়িও পাচ্ছি না। অনেক ভাড়া চাচ্ছে। হেঁটেই যেতে হবে। কী আর করা।”
বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা সংবাদ সংগ্রহে যাওয়া সাংবাদিকদের ছবি তুলতে ও ভিডিও ধারণে বাধা দিচ্ছে।
কয়েকজন সাংবাদিক উত্তরা হাউজ বিল্ডিং এর ফুট ওভার ব্রিজে গিয়ে ভিডিও করতে গেলে তাদের দিতে তেড়ে আসে একদল শিক্ষার্থী। পরে আরেক দল শিক্ষার্থী এসে ওভারব্রিজ থেকে সাংবাদিকদের নামিয়ে দেয়।
এক শিক্ষার্থী সাংবাদিকদের বলেন, “গতকাল আপনারা কোথায় ছিলেন? আপনারা তো কাল কিছুই করেননি। আপনাদের আর আমাদের দরকার নাই।”
রোববার বিভিন্ন স্থানে আন্দোলনকারীদের উপর সরকার সমর্থক ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালিয়েছিল বলে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ।
বনানীতে অবস্থান নেওয়া শিক্ষার্থীরাও ছবি তুলতে বাধা দেয় সাংবাদিকদের।
কুড়িলে যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়েছে।
ভাটারা থানার ওসি এস এম কামরুজ্জামান জানান, “সকাল সাড়ে ১০টার পর থেকে যমুনা ফিউচার পার্কের দুই পাশে তিন-চারশ শিক্ষার্থী বিক্ষোভ করছে। ফলে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।”
দুপুরে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়েছে রামপুরায়ও।
আসাদ গেইটের আড়ং এর সামনে রাস্তায় জড়ো হয়েছে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী। দুপুর ১টার দিকে তাদের শুক্রাবাদের দিকে এগোতে দেখা গেছে।
শাহবাগে সকালে একদল শিক্ষার্থী অবস্থান নিতে গেলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়।
শান্তিনগর, কাকরাইল, মৌচাক, মালিবাগ মোড়, পল্টন এলাকায় দুপুর পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নামতে দেখা যায়নি।
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পাল্টায় অঘোষিত ধর্মঘটে থাকা পরিবহন শ্রমিকদের মিরপুরে সড়কে অবস্থান নিতে দেখা গেছে। মিরপুর ১ নম্বর সেকশনে অবস্থান নিয়েছেন আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরাও।
গত ২৯ জুলাই ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় রমিজউদ্দিন ক্যান্টমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর সড়কে নামে শিক্ষার্থীরা। নিরাপদ সড়কের দাবিতে পরদিন ধরে টানা ঢাকার সড়কে রয়েছে শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *