Friday, November 15, 2019
Home > খেলাধূলা > বাংলাদেশ-ভারত ‘ফাইনাল’ সন্ধ্যায়

বাংলাদেশ-ভারত ‘ফাইনাল’ সন্ধ্যায়

এপিপি বাংলা : সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে রোববার (১০ নভেম্বর) ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। নাগপুরের ভিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন মাঠে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে দিয়েছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। দ্বিতীয় ম্যাচে সিরিজে ফিরেছে ভারত। এ ম্যাচে যে জিতবে সিরিজ তার। অঘোষিত ফাইনাল। ভারতের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের মিশনে টাইগাররা। আর এ মৌসুমে ঘরের মাঠে প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের অপেক্ষায় ভারত।

দুই ম্যাচে বাংলাদেশের উপর অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা দারুণ খেলছে। লিটন দাস, নঈম, সৌম্য সরকাররা প্রত্যাশা মতোই খেলছে। প্রথম ম্যাচে মুশফিকুররের ব্যাট ঝলসে উঠলেও দ্বিতীয় ম্যাচে রান পাননি তিনি। তবে ফর্মে রয়েছেন মুশফিক।

অপরদিকে ভারতের প্রধান ভরসা রোহিত ও ধবন জুটির। প্রথম ম্যাচে রান না পেলেও দ্বিতীয় ম্যাচে একাই ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছেন অধিনায়ক। পাশাপাশি ধবনও দুটি ম্যাচে রান পেয়েছেন। ভারতকে দেখতে হবে পেস বোলিং অ্যাটাক। কারণ এই সিরিজে ভারতের পেসাররা তেমন কিছু করে দেখাতে পারেনি।

বাংলাদেশ অনেকটাই তরুণ একটা দল নিয়ে গেছে এই সিরিজ খেলতে। সিরিজের আগেই বাংলাদেশের অধিনায়ক রিয়াদ তাই বলেছিলেন, তাদের এখানে হারানোর কিছু নেই। প্রথম ম্যাচ জয়ের পর মুশফিকুর রহিমও বলেছিলেন, তারা সিরিজ জয়ের চাপ নিচ্ছেন না। কিন্তু আজ সিরিজ জয়েরই দারুণ একটা সুযোগ এসেছে বাংলাদেশের সামনে।

বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো মনে করেন, তার দলের ব্যাটসম্যানরা সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে আজ সিরিজ জিতে ফেলা সম্ভব। তিনি মনে করেন, ভারতের অনভিজ্ঞ বোলারদের চাপে ফেলে এই ম্যাচ জেতা সম্ভব।

ম্যাচের আগের দিনের সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো বলেন, এটা কোনো গোপন বিষয় নয় যে তাদের বোলিং তুলনামূলক অনভিজ্ঞ। আমরা ভালো ব্যাটিং করতে পারলে, আমাদের কৌশল ঠিক রাখতে পারলে তাদের বোলিংকে চাপে ফেলতে পারি। তারা ভালো দল। কিন্তু আমরা আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী ব্যাট করতে পারলে তাদের বোলিংকে চাপে ফেলতে পারব।

সংবাদ সম্মেলনে ভারতের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক রোহিত শর্মা স্বীকার করেছেন যে তাদের বোলাররা অনভিজ্ঞ এবং তাদের চাপে ফেলা সম্ভব। তবে তিনি আশা করছেন, তার তরুণ বোলাররা এই চাপের পরিস্থিতি থেকে বের হয়ে আসতে পারবেন। তবে এটা মেনেছেন যে বাংলাদেশ দলের পক্ষে দারুণ চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া সম্ভব।

নাগপুরের এই স্টেডিয়ামের উইকেট চিরায়তভাবে ব্যাটসম্যানদের সহায়তা করে। ফলে বড়ো রানের ম্যাচ দেখা যেতে পারে আজ। কিন্তু ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেন, তারা উইকেট থেকে বোলারদেরও কিছু সহায়তা আশা করছেন। বিশেষ করে, স্পিনাররা এখানে টার্ন পেতে পারেন।

বাংলাদেশ দলে একটি পরিবর্তন আসতে পারে। ব্যাট হাতে বলার মতো কিছু করতে পারেননি মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তার বদলে দলে আসতে পারেন গত দুই ম্যাচ সাইড লাইনে বসে থাকা মোহাম্মদ মিঠুন। মোসাদ্দেকের সামান্য চোটজনিত সমস্যাও আছে। এছাড়া সামান্য চোটে আছেন মুস্তাফিজুর রহমানও। যদিও মুস্তাফিজের চোট না খেলার মতো নয়; বরং এই ম্যাচে ‘ম্যাচ উইনার’ মুস্তাফিজকে আশা করছেন বাংলাদেশ কোচ।

ভারতীয় দলেও একটি পরিবর্তনের সম্ভাবনা আছে। যদিও রোহিত শর্মা বলেছেন, তিনি একাদশে খুব একটা পরিবর্তনের পক্ষে নন। তারপরও টানা দ্বিতীয় ম্যাচেও খলিল আহমেদ ভালো বল করতে পারেননি। ফলে তার বদলে শার্দুল ঠাকুরকে দেখা যেতে পারে একাদশে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *