Tuesday, April 20, 2021
Home > আঞ্চলিক সংবাদ > সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রান নিয়ে জনপ্রতিনিধিদের অসন্তোষ,জনসংখ্যা হারে বণ্টনের দাবী

সরকারি বরাদ্দকৃত ত্রান নিয়ে জনপ্রতিনিধিদের অসন্তোষ,জনসংখ্যা হারে বণ্টনের দাবী

বিজয়নগর প্রতিনিধি : বিজয়নগর উপজেলার করোনা ভাইরাস মোকাবিলা সরকার ঘোষিত সহায়তা কর্মসূচি আওতাভুক্ত ভিক্ষুক, দিনমজুর, ভবঘুরে,মুচি,রিক্সাচালক,ভ্যানগাড়ী চালক,পরিবহন শ্রমিক,রেস্টুরেন্ট শ্রমিক,ফেরিওয়ালা, চায়ের দোকানদার কর্মহীন খাদ্যসংকটে যারা দৈনিক আয়ের ভিক্তিতে চলা মানুষজনের মাঝে বিতরণ করার জন্য বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাক্ষরিত (স্মারক নং ৫১,০১,১২,০৭.০০০.৪২.০৩১.২০২০./১১৮) এক চিঠিতে দেখা যায় বিজয়নগর উপজেলার প্রতি ইউনিয়নকে ৩ মেঃটন ও ১০ হাজার নগদ টাকা করে মোট ১০ ইউনিয়নে ৩০ মেঃটন চাল বরাদ্দ হয়।

কিন্তু আজ হরষপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সারওয়ার রহমান ভুইঞা “হরষপুর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার” ফেইজবুক আইডি থেকে এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন হরষপুর, বুধন্তী, পাহাড়পুর উপজেলার সবচেয়ে বড় ইউনিয়ন।তাদের ভোটার প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার। যে বরাদ্দ পেয়েছে তাদের উপজেলার অন্য ইউনিয়নেন ১০/১২ ভোটারের ইউনিয়নের সমান বরাদ্দ পেয়েছে।তাহলে সমান বণ্টন হল কি করে? উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করে তিনি আরো বলেন তার ইউনিয়নে উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশী দরিদ্র জনগনের বসবাস।তিনি তার এই বরাদ্দকৃত চাল দিয়ে কিছুই করতে পারছে না।

বুধন্তী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মোঃ জিতু মিয়া বলেন আমাদের এই তিনটি ইউনিয়নের প্রতি অবিচার করা হচ্ছে। আমাদের একটা বড় ওয়ার্ডের সমান ইউনিয়ন গুলোকে আমাদের সমান বরাদ্দ দিচ্ছে। আমি জনসংখ্যা ভিক্তিতে বরাদ্দের দাবী জানাচ্ছি।

বিজয়নগর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মেহের নিগার বলেন আমাকে জেলা প্রশাসক স্যার যেভাবে নির্দেশ প্রধান করে আমি সেই ভাবেই বাস্তবায়ন করি।এখানে জেলা প্রশাসক স্যার প্রতি ইউনিয়নে সমান ভাবে বণ্টন করার নির্দেশ আমি পালন করেছি।

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *