Thursday, February 29, 2024
Home > খেলাধূলা > আকমলের ঘটনায় আশরাফুলকেও মনে পড়ছে হার্শার

আকমলের ঘটনায় আশরাফুলকেও মনে পড়ছে হার্শার

এপিপি বাংলা : ম্যাচ ফিক্সিংসংক্রান্ত অপরাধে তিন বছর নিষিদ্ধ হয়েছেন উমর আকমল। প্রতিভার এমন অপচয়ে নিজের ক্ষোভ ঝেড়েছেন রমিজ রাজা, আকমলকে বলেছেন ‘নির্বোধ’! আরেক জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হার্শা ভোগলে অবশ্য এতটা কড়া মন্তব্য করেননি। তবে আকমলের সঙ্গে তাঁর মনে পড়েছে বাংলাদেশের মোহাম্মদ আশরাফুলের কথাও। দুজনকে নিয়ে ভীষণ আক্ষেপ হার্শার।
হার্শার চোখে আশরাফুল ও আকমল দুজনই অসম্ভব প্রতিভাবান ক্রিকেটার। আশরাফুলের হাত ধরে কত স্মরণীয় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন বহুবার। সেই আশরাফুলই এক সময় পা বাড়িয়ে বসলেন অন্ধকার গলিতে। সে ঘটনায় মন ভেঙেছেন অযুত-নিযুত দর্শকের। ২০১৩ সালে ফিক্সিংয়ের অপরাধে নিষিদ্ধ হয়েছেন পাঁচ বছর। নিষেধাজ্ঞার পর্ব পেরিয়ে আশরাফুল ক্রিকেটে আবারও নিয়মিত হয়েছেন। তবে ৩৫ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান যে চলে এসেছেন ক্যারিয়ারের শেষ দিকে। যদি ফিক্সিংয়ের অপরাধে না জড়াতেন, ক্যারিয়ারটা হয়তো অনেক উজ্জ্বলই হতো বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়কের।
আশরাফুল যেমন একটা সময় অনেক আশা দিয়েছেন বাংলাদেশকে, আকমলকে নিয়েও পাকিস্তান ক্রিকেটের নিশ্চয়ই বড় আশা ছিল। সে আশায় গুঁড়েবালি। ম্যাচ ফিক্সিং–সংক্রান্ত প্রস্তাব পেয়েও তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে বড় অপরাধ করেছেন আকমল। দুদিন আগে তাঁকে লম্বা সময়ের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আকমলের অপরাধ কেবল এটিই নয়, খেলার চেয়ে খেলার বাইরের ঘটনায় জড়িয়ে সমালোচিত হয়েছেন তিনি অনেক বার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উল্টো–পাল্টা পোস্ট দিয়ে হাসির খোরাক হয়েছেন। প্রতিভার নিদারুণ অপচয় যাকে বলে উমর সেটিরই প্রতিরূপ!
আশরাফুল আর আকমলকে নিয়ে আক্ষেপ করে হার্শা তাই টুইট করেছেন, ‘আমাদের (ভারত) পূর্বে (বাংলাদেশ) ও পশ্চিমে (পাকিস্তানে) দুজন অসামান্য প্রতিভাবান দেখলাম। মোহাম্মদ আশরাফুল আর উমর আকমল। তুমি তোমার প্রতিভাকে কতটা কাজে লাগাচ্ছ সেটির ওপর নির্ভর করে তুমি কত দূর যাবে। শুধু প্রতিভা থাকলেই হয় না।’
আশরাফুল, আকমল…উদাহরণের শেষ নেই। তবুও অনেক প্রতিভাবান ক্রিকেটার কেন যে এভাবে নিজেকে কলঙ্কিত করেন, এ প্রশ্নেরও যেন উত্তর নেই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *