Wednesday, October 20, 2021
Home > আঞ্চলিক সংবাদ > মৌলভীবাজারের পল্লীতে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট ঘটনায় ৪ জন আহতসহ প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

মৌলভীবাজারের পল্লীতে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট ঘটনায় ৪ জন আহতসহ প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

 

মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী : মৌলভীবাজারের পল্লীতে বসতবাড়ীতে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট ঘটনায় ৪ জন আহতসহ প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়েছে আক্রান্ত পক্ষ। এ ঘটনায় ২৩ জনকে আসামী করে মৌলভীবাজার মডেল থানায় মামলা (নং- ১১/১০১) দায়ের করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে প্রকাশ- মৌলভীবাজার জেলসদর উপজেলার ১০নং নাজিরাবাদ ইউনিয়নস্থিত আটঘর (মানিকপুর) গ্রামের রাকিব মিয়া গং ৮ জনের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ হোসেনপুর গ্রামের আজাদ মিয়া গং ২৩ জনের বিরোধসহ মনোমালিন্য চলছে। এরই জের হিসাবে আজাদ মিয়া গংদের ১৫ জন গত ৬ মে দুপুর আড়াইটার দিকে রাকিব মিয়া গংদের আলকাফ মিয়ার হাসের খামার থেকে জোরপূর্বক হাস নিয়ে যাবার চেষ্টা চালায়। এসময় রাকিব মিয়া গংদের ৪ জন তাতে বাঁধা দিলে আজাদ মিয়া গংরা ১৫ জন মিলে তাদেরকে বেধড়ক পিটিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। আহত রাকিব মিয়া ও আলী হোসেনকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের ডাক্তার গুরুতর আহত রাকিব মিয়াকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ওই ঘটনার জের হিসাবে পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে পরদিন ৭ মে দুপুর ২টার দিকে দেশীয় অস্ত্রসজ্জিত আজাদ মিয়া গংরা ২৩ জন সংঘবদ্ধভাবে হাসের খামার মালিক আলকাফ মিয়ার বসতবাড়ীতে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট চালায়।

প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী এ হামলা-ভাংচুর-লুটপাটের ঘটনায় বসতবাড়ীর গৃহবধু মিনা বেগম ও রুবেনা বেগম গুরুতর আহত হয়। ঝাঝরা করে দেয়া হয়েছে ৩টি বসতগৃহ- যা ক্ষতির পরিমান টাকার অংকে ১ লাখ টাকা। ভেঙ্গে ছারখার করা হয়েছে যাবতীয় মালামাল। লুটপাট করা হয়েছে খামারের ১০৩০টি হাস, ২২০ মন ধান, ৪টি শোকেস, ২ ভরি ওজনের বিভিন্ন ধরণের স্বর্ণালংকার ও নগদ ২ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। এককথায়, পরিবারটিকে পুরোপুরি পঙ্গুপ্রায় করে দেয়া হয়েছে।

ঘটনার পর গুরুতর মিনা বেগম ও রুবেনা বেগমকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের ডাক্তার তাদেরকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বিলম্বে অবগত হয়ে গত ৯ মে দুপুরে সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, আজাদ মিয়া গংদের হামলা-ভাংচুর-লুটপাটে আলকাফ মিয়ার বাড়ীর যে ভয়াবহ অবস্থা হয়েছে, তা স্বচক্ষে না দেখলে বিশ্বাস করা কষ্টকর।

ওই এলাকা ও আশপাশ এলাকায় ঘুরে বিভিন্ন লোকের সাথে কথা বলে জানা গেছে- ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষটি অস্থানীয় ও স্বচ্ছল এবং প্রতিপক্ষরা স্থানীয় ও অস্বচ্ছল হওয়ায় পরিকল্পিত ও হিংসামূলকভাবে ঘটনাটি সংঘটন করা হয়েছে।

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *