Tuesday, March 2, 2021
Home > আঞ্চলিক সংবাদ > আতঙ্ক কাটিয়ে বিজয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা গ্রহনের সংখ্যা বাড়ছে

আতঙ্ক কাটিয়ে বিজয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা গ্রহনের সংখ্যা বাড়ছে

এপিপি বাংলা : বিজয়নগর উপজেলায় ভয়-উৎকণ্ঠা কাটিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে করোনার টিকা গ্রহণ চলছে। যতই সময় পার হচ্ছে ততই মানুষের ভিড় বাড়ছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকাদান কেন্দ্রে। দিন দিন বাড়ছে মানুষের টিকা গ্রহণের আগ্রহ। এমন বাস্তবতায় গত ১২ দিনের তুলনায় আজ সোমবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রায় দ্বিগুণ টিকা নিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

টিকাদানের ১৩ম দিনে উপজেলায় ১০০ জন টিকা গ্রহণ করেছেন। সকাল ৯টা থেকে ৩টা পর্যন্ত ২টি বুথে চলে টিকাদান কর্মসূচি।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকাগ্রহণ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পি, বিজয়নগর উপজেলা প্রেসক্লাব আহবায়ক বিশিষ্ট সাংবাদিক এস এম কামরুল হাসান শান্তসহ কয়েকজন সংবাদকর্মী বিভিন্ন শ্রেণি পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

বিজয়নগর উপজেলা প্রেসক্লাব আহবায়ক এস এম কামরুল হাসান শান্ত টিকা গ্রহনের পরে জানান,আমি আজ বিজয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে টিকা গ্রহন করে সুস্থতাবোধ করছি।আমি অনুরোধ করছি বিজয়নগর উপজেলাবাসীসহ দেশবাসী আপনারা টিকা গ্রহন করুন।স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।আপনার সুরক্ষিত থাকুন অন্যকেও সুরক্ষিত রাখুন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ মাছুম বলেন, টিকা শুরুর প্রথম দিকের তুলনায় এখন টিকা গ্রহণে মানুষের আগ্রহ বাড়ছে।আমরা আমাদের নিজস্ব স্বাস্থ্য কর্মীদের মাধ্যমে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সচেতনতার জন্য প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের প্রচার প্রচারণায় প্রত্যক্ষ ভাবে উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিগন সহযোগিতা করছেন। সেই সাথে মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। বাড়ছে রেজিষ্ট্রশনের সংখ্যা ও টিকা গ্রহনকারীর সংখ্যা। সরকার নির্ধারিত বয়সের সকল শ্রেণিপেশার মানুষকে নিবন্ধন করে মহামারী ব্যাধি কোভিড-১৯ এর টিকা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বিজয়নগর উপজেলায় এ পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন করেছে ১৮৮২ জন এবং কোভিড-১৯ এর টিকা গ্রহণ করেছেন ১২৮৯ জন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রথম ধাপে মোট ৪ হাজার ৮০০ ডোস ভ্যাকসিন এসেছে।

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *