Friday, May 20, 2022
Home > বিশেষ সংবাদ > পদ্মা সেতুর আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান

পদ্মা সেতুর আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান

এপিপি বাংলা : পদ্মা সেতুর ১৬তম স্প্যান বসানো হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে সেতুর ১৬ ও ১৭ নম্বর খুঁটিতে এই স্প্যানটি বসানো হয়। তার আগে সকালেই স্প্যানটি নেওয়া হয় খুঁটির কাছে।

১৬তম স্প্যান বসানোয় সেতুর ২৪শ’ মিটার বা প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান হলো।

সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, চলতি মাসে আরও দুটি স্প্যান বসানো হবে।

তিনি আরও জানান, নাব্য সংকটের কারণে এর আগের স্প্যান খুঁটিতে বসাতে দেরি হয়েছে। তবে পরবর্তী স্প্যানগুলো বসাতে এরকম দেরি হবে না। কারণ ড্রেজিং যেভাবে করা হয়েছে তাতে বাকি স্প্যানগুলো এই চ্যানেল ধরে চলে কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে খুঁটির কাছে সহজে চলে যেতে পারবে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার লম্বা পদ্মা সেতুতে মোট ৪১টি স্প্যান বসাতে হবে। এর মধ্যে চীন থেকে সেতু এলাকায় স্প্যান এসেছে ৩১টি। সেখান থেকে ১৬টি স্থাপন করা হয়েছে।

পদ্মা সেতুর প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সেতুর রোডওয়ে স্ল্যাব স্থাপনের কাজ নির্ধারিত গতিতে এগোতে পারছে না। মোট ২ হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্ল্যাব বসবে সেতুতে। এর মধ্যে এক হাজার ৬৭৪ টি স্ল্যাব তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। বসানো হয়েছে ৬৯টি রোডওয়ে স্ল্যাব। দিনে মাত্র একটি রোড ওয়ে স্ল্যাব বসানো যাচ্ছে। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে পদ্মা সেতুর কাজ শেষ করতে হলে দিনে অন্তত ৮ টি করে রোডওয়ে স্ল্যাব বসানোর প্রয়োজন রয়েছে।

প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, মূল সেতুর বাস্তব কাজের অগ্রগতি ৮৪ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৭৯ দশমিক ০৮ শতাংশ। ২০২১ সালের জুন মাসে সেতু দিয়ে গাড়ি চলবে।

এখন পর্যন্ত মূল সেতুর ৪২ টি খুঁটির মধ্যে ৩৩টি খুঁটির কাজ শেষ। বাকি থাকা ৯টির খুঁটির উপরের অংশের কাজ চলছে।

মূল সেতু নির্মাণের দায়িত্বে রয়েছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন কোম্পানি। নদী শাসনের কাজ করছে চীনের আরেক প্রতিষ্ঠান সিনোহাইড্রো করপোরেশন। দুইপ্রান্তে টোল প্লাজা, সংযোগ সড়ক ও অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণ করছে দেশীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *