Wednesday, October 20, 2021
Home > রাজনীতি > জেএসডি’র সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

জেএসডি’র সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

এপিপি বাংলা : জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র কেন্দ্রীয় কাউন্সিল-২০১৯ উত্তর এক সংবাদ সম্মেলন আজ সকাল ১১ টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনী হলে অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে প্রারম্ভিক বক্তব্য উপস্থাপন করেন এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন জেএসডি’র নব নির্বাচিত সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব। লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. ছানোয়ার হোসেন তালুকদার। উপস্থিত ছিলেন কার্যকরী সভাপতি সা কা ম আনিছুর রহমান খান কামাল, মোহাম্মদ সিরাজ মিয়া, সহ-সভাপতি মিসেস তানিয়া রব, কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, সহ-সভাপতি এ্যাড. আবদুল হাই, এ্যাড. আবদুর রহমান সহ নব নির্বাচিত অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলন শেষে নেতৃবৃন্দ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন এবং শপথ গ্রহন করেন। শপথ বাক্য পাঠ করান জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থাপিত লিখিত বক্তব্য নি¤œরূপঃ
প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুরা
সবাইকে জেএসডি’র পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা। আপনারা জানেন গত ২৮ ডিসেম্বর জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন হয় এবং ২২১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি গঠিত হয়। কাউন্সিল-২০১৯ এ একদিকে দেশের বিদ্যমান রাজনৈতিক ও শাসনতান্ত্রিক সংকট নিরসনে জাতীয় সরকারের প্রস্তাবনা উত্থাপন করেছে অন্যদিকে স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তীর লগ্নে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার লক্ষ্যে অংশীদারিত্ব ভিত্তিক শাসনতন্ত্র ও শাসনতান্ত্রিক প্রস্তাবনা উত্থাপন সহ রাজনৈতিক নির্দেশনা হাজির করেছে। কাউন্সিলে স্বাধীনতার রূপকার, রাজনৈতিক দার্শনিক, অংশীদারিত্বের গণতন্ত্রের প্রবক্তা সিরাজুল আলম খান এর রাজনৈতিক দর্শন অনুসরণ ও দ্বিতীয় ধারার রাজনীতির ধারাবাহিকতা রক্ষার অংঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে জেএসডি । নতুন বছরে নতুন কমিটির প্রথম সাংবাদিক সম্মেলনে আপনাদেরকে স্বাগত জানাচ্ছি।

প্রিয় বন্ধুরা
দেশের রাষ্ট্রীয় রাজনীতি এক ভয়ংকর পরিনতির দিকে এগুচ্ছে। ২০১৮ সালে জাতীয় নির্বাচনে রাতের আঁধারে ভোট ডাকাতিতে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ‘লোভ’ আর ‘ভয়ে’ অংশগ্রহণে বাধ্য করায় রাষ্ট্র এক বিভৎস চরিত্র ধারণ করেছে। রাষ্ট্রের যে সকল প্রতিষ্ঠান জনগণের অধিকার সুরক্ষার সাংবিধানিক কর্তব্য পালন করার কথা-জনগণের ভোটাধিকার অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার প্রয়োজনীয় সকল দায়িত্ব পালন করার কথা সে সকল প্রতিষ্ঠান জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে সরকারের অবৈধ কাজের সহযোগী হয়ে ভোট ডাকাতিতে অংশগ্রহণ করে রাষ্ট্রকে বিপজ্জনক-ভয়ংকর ভয়াবহ অবস্থায় ঠেলে দিয়েছে। রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের এমন ধ্বংসলীলা এর আগে জাতি কখনো প্রত্যক্ষ করেনি।

সরকার তার অবৈধ ক্ষমতা দখলকে নিরাপদ করতে আগ্রাসী বলপ্রয়োগ, ভয়ভীতি, নিপীড়ন-নির্যাতনের প্রতিযোগীতামূলক সংস্কৃতি চালু করে সমাজকে ভয়ংকর পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছে। সমাজের এই ভয়ংকরতার দু’একটি খন্ড চিত্র উত্থাপন করছি। পুলিশ সদর দপ্তরের সরকারী তালিকায় প্রকাশ হয়েছে গত বছর দেশে ১৭ হাজার ৯ শত নারী নির্যাতনের মামলা হয়েছে আর ধর্ষনের শিকার হয়েছে ৫ হাজার ৪০০ জন, শিশু ধর্ষিত হয়েছে ৮শ ১৫ জন। এছাড়া ২০১৯ সালে দেশে ৩ হাজার ৭০০ নারী অপহৃত হয়েছে, আর শিশু অপহৃত হয়েছে ৫ শত ৭৬ জন। গড়ে প্রতিমাসে ৩ শত ৬৫ জন শিশু বিভিন্ন রকমের সহিংসতার শিকার হচ্ছে। সমাজ দেহে বন্য ও বর্বরতার চিহ্ন ফুটে উঠেছে। অন্যদিকে বিচারবর্হিভূত হত্যা, গুম-খুন এখন রাষ্ট্রের রুটিন ওয়ার্কে পরিনত হয়েছে। স্বাধীন দেশের সন্তানদের এভাবে হত্যা করা যায় না। নৃশংস-নিষ্ঠুর-বর্বর সংস্কৃতির দাপটে বাঙালী’র মানবিক মূল্যবোধের বিকাশ থমকে যাচ্ছে। নারী-শিশুর উপর সহিংসতা, হত্যা-গুম-খুন সহ মানবাধিকার লঙ্গনে বাংলাদেশ এখন বিশে^র অন্যতম আলোচিত রাষ্ট্র। এরকম রাষ্ট্রের পরিচিতি পেতে মুক্তিযুদ্ধ সংঘঠিত হয়নি।

প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুরা
রাষ্ট্রের এই অবস্থা বিপজ্জনক অবস্থানের চেয়েও অনেক বেশী ভয়াবহ। আমরা এখন ধ্বংসপ্রাপ্ত বা ব্যর্থ রাষ্ট্রের নিকটবর্তী। এই সরকার যত ক্ষমতায় থাকবে তত দেশ চরম নৈরাজ্যের ঝুঁকিতে পড়বে-মানুষের মূল্যবোধ নি¤œ পর্যায় নেমে যাবে, মানুষকে আরো বিপদগামী করবে। ভোট ডাকাতির দিবসকে যখন সরকার ‘গণতন্ত্র দিবস’ হিসেবে পালন করছে এবং ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের বিপুল সমর্থনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় সরকার গঠিত হয়েছে বলে যখন বাংলাদেশের রাষ্ট্র প্রধান ও সরকার প্রধান জাতির উদ্দেশ্যে বক্তব্য প্রদান করেন তখন সেই রাষ্ট্রে সত্য ও নৈতিকতা আর অবস্থান করতে পারে না। ফলে সরকার অনৈতিক, অবৈধ, অপ্রয়োজনীয় কাজে রাষ্ট্রকে ব্যবহার করছে। এসব ব্যর্থ রাষ্ট্রের চিহ্ন, তারপরও বর্তমান সরকারের বিবেকের কোন অনুতাপ নেই।

 

 

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *