Monday, September 27, 2021
Home > Uncategorized > ২৪ ঘন্টায় নতুন আক্রান্ত বেড়েছে,নতুন মৃত্যু আট জন

২৪ ঘন্টায় নতুন আক্রান্ত বেড়েছে,নতুন মৃত্যু আট জন

এপিপি বাংলা : দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আরও আট জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ১৬৩ জন। একদিনে নতুন করে করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন ৬৪১ জন, যা এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এনিয়ে শনাক্ত ছাড়ালো সাত হাজার। এখন পর্যন্ত করোনায় মোট শনাক্ত হয়েছেন সাত হাজার ১০৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১১ জন এবং মোট সুস্থ হয়েছেন এখন পর্যন্ত ১৫০ জন।
বুধবার (২৯ এপ্রিল) বেলা ২টা ৩০ মিনিটে দেশের কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিন অনলাইনে প্রচারিত হয়। বুলেটিনে ভিডিও কনফারেন্সে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।
বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে চার হাজার ৭০৬টি। এই নমুনা সংগ্রহ আগের দিনের তুলনায় ৯ দশমিক ২১ শতাংশ বেশি। অন্যদিকে আগের দিনের কিছু নুমনাসহ মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে চার হাজার ৯৬৮টি, যা আগের দিনের তুলনায় ১৪ দশমিক ৬৮ শতাংশ বেশি। এখন পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৬ হাজার ৭০১টি।
গত ২৪ ঘণ্টায় যে আট জন মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের বিষয়ে অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, মারা যাওয়া আট জনের মধ্যে ছয় জন পুরুষ এবং দুই জন নারী। অবস্থানের ভিত্তিতে বিচার করলে ছয় জন ঢাকার ভেতরে, দুই জন ঢাকার বাইরে। বয়সের ভিত্তিতে বিচার করলে চার জনের বয়স ৬০ বছবের বেশি, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে দুই জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুই জন রয়েছেন।
এদিকে নতুন করে আইসোলেশনে গত ২৪ ঘণ্টায় এসেছেন ১০৩ জন আর এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে আছেন এক হাজার ৩৪০ জন। আইসোশন থেকে মুক্ত হয়েছেন ৪৮ জন, এ পর্যন্ত মুক্ত হয়েছেন ৮৩৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন দুই হাজার ৪১২ জন, আর প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন ১৩২ জন মোট ২ হাজার ৫৪৪ জন কোয়ারেন্টিনে আছেন।
বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ দেশে শনাক্তের ৫৩তম দিন চলছে। এখন পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করা ১৬৩ জনের মধ্যে বেশি রোগী ঢাকা বিভাগের। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ১৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *