Friday, October 22, 2021
Home > আন্তর্জাতিক > ভারত মহাসাগরে জাহাজে আগুন

ভারত মহাসাগরে জাহাজে আগুন

এপিপি বাংলা : শ্রীলঙ্কার কাছে ভারত মহাসাগরে একটি তেলবাহী জাহাজে আগুন লেগেছে। বিপুল পরিমাণ অপরিশোধিত তেল এবং ডিজেল রয়েছে ওই ট্যাঙ্কারে। শ্রীলঙ্কা এবং ভারতের নৌসেনা উদ্ধার কাজে নেমেছে। আগুন আপাতত নিয়ন্ত্রণে বলে জানানো হয়েছে। ট্যাঙ্কার থেকে তেল লিক করেনি বলেও জানানো হয়েছে। তবে যে কোনো সময় লিক হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কিছু দিন আগেই জাপানের একটি তেল ট্যাঙ্কার থেকে তেল লিক করেছিল মরিশাসের কোরাল রিফে। প্রকৃতির ভয়াবহ ক্ষতি হয়েছিল। শ্রীলঙ্কার নৌবাহিনী সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছে, ফের যাতে ওই ধরনের ঘটনা না ঘটে, তার দিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে।
দুই লাখ ৭০ হাজার টন অপরিশোধিত তেল এবং এক হাজার ৭০০ টন ডিজেল নিয়ে কুয়েত থেকে রওনা হয়েছিল নিউ ডায়মন্ড ট্যাঙ্কার। ভারতের পারাদ্বীপে যাচ্ছিল জাহাজটি। বৃহস্পতিবার শ্রীলঙ্কা বন্দরের কাছে হঠাৎই আগুন লেগে যায় জাহাজটিতে। ২৩ জন কর্মী ছিলেন জাহাজটিতে। তার মধ্যে ১৮ জন ফিলিপিনো এবং ৫ জন গ্রিক। আগুন লাগার পর তা নেভাতে গিয়ে দুইজন কর্মী আহত হন বলে জানা গেছে। তার মধ্যে একজন এখনো নিখোঁজ। বাকিদের একটি পানামার ফ্ল্যাগ লাগানো জাহাজ প্রাথমিকভাবে উদ্ধার করে।
এরপরেই শ্রীলঙ্কা নৌবাহিনীর ছোট ছোট নৌকো জাহাজের সামনে গিয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। নৌবাহিনী জানিয়েছে, আপাতত আগুন নিয়ন্ত্রণে। তবে এখনো তেল লিক হওয়ার সম্ভাবনা আছে।
শ্রীলঙ্কা নৌবাহিনীর বক্তব্য, তেল লিক হলে তার সাথে মোকাবিলা করার মতো ব্যবস্থা তাদের নেই। ভারত এর মধ্যেই নৌবাহিনীর একটি জাহাজ পাঠিয়েছে। আরো দুইটি নৌবাহিনীর জাহাজ পাঠানো হচ্ছে। তেল লিক হলে ভারতীয় নৌবাহিনী তার মোকাবিলা করবে বলে জানা গেছে।
কিছু দিন আগেই মরিশাসের কাছে কোরাল রিফে তেল লিক হয়েছিল জাপানের একটি জাহাজের। কয়েক হাজার টন তেল পানিতে মিশে যায়। যার ফলে সমুদ্রের বিপুল ক্ষতি হয়েছে। নষ্ট হয়েছে জলজ উদ্ভিদ এবং প্রাণী। সে সময় বহু পরিবেশ বিষয়ক সংস্থা অভিযোগ করেছিল, জাহাজগুলিকে ঠিকভাবে সংস্কার না করেই পানিতে নামিয়ে দেয়া হয়। সে কারণেই এ ধরনের ঘটনা ঘটে। আর দুর্ঘটনা ঘটলেও জাহাজ কোম্পানির কিছু এসে যায় না। বীমা সংস্থা থেকে তারা ক্ষতিপূরণ পেয়ে যায়। বৃহস্পতিবারের ঘটনার পরে ফের সেই প্রশ্ন সামনে চলে এসেছে।সূত্র: ডয়চে ভেলে

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *