Monday, September 27, 2021
Home > জাতীয় সংবাদ > নতুনবাগ জামিয়ার বার্ষিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত

নতুনবাগ জামিয়ার বার্ষিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত

এপিপি বাংলা : মানবতার বাতিঘর কওমি মাদরাসা।ঈমান-ইসলাম ও দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের অতন্দ্রপ্রহরী হিসেবে মাদরাসা শিক্ষিতরা যুগ যুগ থেকে ভূমিকা পালন করে আসছেন। মাদরাসা শিক্ষিতরা সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা, দূর্নীতি প্রতিরোধ, অন্যায় ও অশ্লীল কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদসহ মানুষের ইহ-পরকালিন সামগ্রীক কল্যাণ ও মুক্তির জন্য নিরলসভাবে কাজ করে থাকেন। সুনাগরিক তৈরিতে কওমি মাদরাসা যে ভূমিকা পালন করে আসছে তার নজির বিরল। অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, কওমি মাদরাসার স্বাতন্ত্রবোধ, স্বকিয়তা ও ঐতিহ্য ভূলন্ঠিত করার জন্য সূক্ষ্ম ষড়যন্ত্র চলছে। কওমি মাদরাসা কোনো কারণে বাধার মুখোমুখি হলে এদেশের ইসলাম মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই দেশ ও মানুষের স্বার্থে ইসলাম বিনাশী সব অপশক্তির মোকাবেলায় ছাত্র সমাজকে সোচ্চার ভূমিকা পালন করতে হবে।

আজ ৪ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার, বাদ মাগরিব, রাজধানী ঢাকা, রামপুরা জামিয়া আরাবিয়া দারুল উলুম নতুনবাগ মাদ্রাসার বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তেব্যে জামিয়ার মুহতামিম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব ও হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব শায়খুল হাদিস মাওলানা ড. গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ছাত্র সমাজ জাতির কাণ্ডারী। আগামীর দিক দিশারী। কোরআন সুুুুন্নাহের ধারক ও বাহক। অন্ধকারে নিমজ্জিত আমাদের এই সমাজ ব্যবস্থা ভেঙ্গে কুরআন সুুুন্নাহের আলোকে একটি সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে হলে ছাত্র সমাজকে এখন থেকে গভীর অধ্যায়নের পাশাপাশি লেখালেখি, বক্তৃতা ও সবরকমের সৃজনশীল শিক্ষায় নিজেকে শিক্ষিত করে তুলতে হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্যাকেস্টোন গ্রুপের এমডি ও নতুনবাগ জামিয়ার শুরা সদস্য আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার আজহারুল ইসলাম, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব নিজামুদ্দিন, আলহাজ্ব শামসুল আলম, আলহাজ্ব এস এম পারভেজ, আলহাজ্ব এমদাদুল হক, দৈনিক যুগান্তরের সহকারী সম্পাদক মাওলানা তোফায়েল গাজালি,মুফতি জাকির হোসাইন খান, মুফতি নাসির উদ্দিন, মুফতি মাহবুবুল আলম, মুফতি কামরুল হাসান, মুফতি আবু সাঈদ, মুফতি রেজাউল করিম,মাওলানা ওয়ালী উল্লাহ আরমান, মাওলানা খাদেমুল ইসলাম শরীফ, মুফতি আতাউর রহমান খান,ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি সুহাইল আহমদ ও ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আল আদনান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব আজহারুল ইসলাম বলেন, আমি কওমী মাদরাসায় আত্মার যে প্রশান্তি অনুভব করি, তা অন্য কোথাও পাই না। তিনি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সব শিক্ষার্থীদেরকে মোবারকবাদ জানিয়ে বলেন, আপনারা দ্বীনের দা‌‌‌‌‌‌‍ঈ তাই আপনাদের দায়িত্ব অনেক বেশি। আপনারা বক্তব্য ও লিখনীর মাধ্যমে দ্বীন প্রচার প্রসারে ভূমিকা রাখলে সমাজের সব অসঙ্গতি, অন্যায় সর্ম্পকে জাতি সচেতনতা লাভ করবে।

Like & Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *